ঝিনাইদহে দেহ ব্যবসার মুল হোতা সাবেক চেয়ারম্যানের স্ত্রী বেবী আটক

669
smart

ঝিনাইদহে দেহ ব্যবসার মুল হোতা সাবেক চেয়ারম্যানের স্ত্রী বেবী আটক

স্টাফ রিপোর্টার,

ঝিনাইদহে নারী দেহ ব্যবসার মুল হোতা ঝিনাইদহ সদর উপজেলার নলডাঙ্গা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান রুহুল আমিনের স্ত্রী বেবী কে ঝিনাইদহ শহরের হামদহ পার হাউজ পাড়ার বাসা থেকে ৪ঠা আগস্ট রোজ মঙ্গল বার সকাল ১০ টার দিকে আটক করেছে ঝিনাইদহ থানা পুলিশ।

ঝিনাইদহ থানার পুলিশ সুত্রে জানা যায় বেবী দীর্ঘদিন যাবত নারীদের দিয়ে দেহ ব্যবসা করে আসছিল । সে ঝিনাইদহের অনেক ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন স্তরের মানুষের সাথে নারীদের নগ্ন ছবি তুলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল। তার সাথে ঝিনাইদহ শহরের অনেক দেহ ব্যবসায়ী নারী জড়িত। ঝিনাইদহে এই অন্ধকার জগতের মহা সম্রাজ্ঞী হিসাবে পরিচিত।

এই বেবী ঝিনাইদহে এতটাই প্রভাব শালী যে সে পুলিশের হাতে ধরা পড়ার পর সাংবাদিকেরা ছবি তুলতে গেলে, সে সাংবাদিকদের বলে যে আমার ছবি যারা তুলছে আমি ছাড়া পাওয়ার পর তাদের দেখে নেওয়া হবে। যান আমার ছবি ফেসবুক সহ বিভিন্ন পত্রিকায় ছড়িয়ে দেন। তাতে আমার কি হয় দেখব বলে হুমকি দেন।

ঝিনাইদহে সদর থানার অফিসার ইনচার্জ মিজানুর রহমান জানান যে বেবী দীর্ঘ দিন যাবত ঝিনাইদহে শহরে নিজে ও অন্য নারীদের দিয়ে দেহ ব্যবসা চালিয়ে আসছে। শুধু তাই নয় বিভিন্ন মানুষের সাথে নারীদের নগ্ন ছবি তুলে ব্লাকমেল করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার সাথে আরো যারা আছে তাদের গ্রেফতার করা হবে। ঝিনাইদহ শহর জেলা থেকে এই ধরনের ভ্রম্যমান পতিতাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হবে তিনি প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য সম্প্রতি কালে কয়েকদিন মধ্যে ঝিনাইদহ থানা পুলিশ দেহ ব্যবসার মাধ্যমে বিভিন্ন মানুষের নিকট থেকে হয়রানী কাজে নিয়োজিত ৬ নারী সহ ৮ জন কে আটক করল। হামদহ পার হাউজ পাড়ার বাসা থেকে ৪ঠা আগস্ট রোজ মঙ্গল বার সকাল ১০ টার দিকে আটক করেছে ঝিনাইদহ থানা পুলিশ।

ঝিনাইদহ থানার পুলিশ সুত্রে জানা যায় বেবী দীর্ঘদিন যাবত নারীদের দিয়ে দেহ ব্যবসা করে আসছিল । সে ঝিনাইদহের অনেক ব্যবসায়ী সহ বিভিন্ন স্তরের মানুষের সাথে নারীদের নগ্ন ছবি তুলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছিল। তার সাথে ঝিনাইদহ শহরের অনেক দেহ ব্যবসায়ী নারী জড়িত। ঝিনাইদহে এই অন্ধকার জগতের মহা সম্রাজ্ঞী হিসাবে পরিচিত।

এই বেবী ঝিনাইদহে এতটাই প্রভাব শালী যে সে পুলিশের হাতে ধরা পড়ার পর সাংবাদিকেরা ছবি তুলতে গেলে, সে সাংবাদিকদের বলে যে আমার ছবি যারা তুলছে আমি ছাড়া পাওয়ার পর তাদের দেখে নেওয়া হবে। যান আমার ছবি ফেসবুক সহ বিভিন্ন পত্রিকায় ছড়িয়ে দেন। তাতে আমার কি হয় দেখব বলে হুমকি দেন।

ঝিনাইদহে সদর থানার অফিসার ইন চার্জ মিজানুর রহমান জানান যে বেবী দীর্ঘ দিন যাবত ঝিনাইদহে শহরে নিজে ও অন্য নারীদের দিয়ে দেহ ব্যবসা চালিয়ে আসছে। শুধু তাই নয় বিভিন্ন মানুষের সাথে নারীদের নগ্ন ছবি তুলে ব্লাকমেল করে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। তার সাথে আরো যারা আছে তাদের গ্রেফতার করা হবে। ঝিনাইদহ শহর জেলা থেকে এই ধরনের ভ্রম্যমান পতিতাদের কার্যক্রম বন্ধ করে দেওয়া হবে তিনি প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

উল্লেখ্য সম্প্রতি কালে কয়েকদিন মধ্যে ঝিনাইদহ থানা পুলিশ দেহ ব্যবসার মাধ্যমে বিভিন্ন মানুষের নিকট থেকে হয়রানী কাজে নিয়োজিত ৬ নারী সহ ৮ জন কে আটক করল।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here